President

মানুষের অন্তরের চিন্তা-ভাবনার ওপর নির্ভর করে তার অন্যান্য অঙ্গের ভালো কাজ কিংবা মন্দ কাজ। অন্তর ভালো থাকলে, মানুষের কাজও ভালো হয়। তবে মানুষ শরীরের অন্যান্য রোগের কথা মানুষ জানলেও অন্তরের রোগ সম্পর্কে জানেন না বলেই চলে। ফলে অধিকাংশ মানুষের অন্তর অসুস্থ, আর অন্তর অসুস্থ থাকার কারণে মানুষ পাপ কাজে জড়িয়ে যায়।

ইসলামি স্কলাররা বলেন, মানুষের অন্তর কঠিন হওয়ার কিংবা মারা যাওয়ার আলামত হলো- আল্লাহর আনুগত্য ও ভালোকাজে অলসতা। আল্লাহর হুকুম, কোরআনের আয়াত, সুন্দর উপদেশবাণী শুনে প্রভাবিত না হওয়া। দুনিয়াতে আল্লাহর আজাব-গজব ও মানুষের মৃত্যু দেখে ভীত না হওয়া। দুনিয়ার প্রতি ভালোবাস বেড়ে যাওয়া ও আখেরাতকে ভুলে থাকা।

ইসলামি স্কলারদের মতে, মুসলমানরা এখন যেসব পরীক্ষা ও মহা মসিবতে পতিত এবং ভয়াবহ রোগে আক্রান্ত- এর অন্যতম একটি রোগ হলো- অন্তর কঠিন হয়ে যাওয়া।

একদিন বিখ্যাত বুজুর্গ হজরত ইবরাহিম ইবনে আদহাম (রাহ.) বসরা শহরের এক বাজারের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। লোকজন তার পাশে সমবেত হয়ে জিজ্ঞাসা করলো- হে আবু ইসহাক! আল্লাহতায়ালা কোরআনে বলেছেন, ‘আমাকে ডাকো, আমি তোমাদের ডাকে সাড়া দেব।’ কিন্তু আমরা অনেক দিন ধরে দোয়া করছি, অথচ আল্লাহতায়ালা আমাদের দোয়ার সাড়া দিচ্ছেন না।

০১ জানুয়ারী, ২০১৮ ০০:৩৮ এ.ম