President

টঙ্গীর তুরাগ তীরে আজ ফজর নামাজের পর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। এদিকে আজ শুক্রবার ইজতেমা ময়দানে জুমার নামাজে শরিক হতে সকাল থেকে নামবে মুসল্লির ঢল।

আল্লাহর পথে আহ্বানের শিক্ষা নিতে ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন দেশ-বিদেশের কয়েক লাখ ধর্মপ্রাণ মানুষ। চার দিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা উপলক্ষে আবার মুসল্লিদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে শিল্প শহর টঙ্গী। আগামী রবিবার ২১ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা।

দ্বিতীয় পর্বে অংশ নিচ্ছেন ঢাকার একাংশসহ দেশের ১৩টি জেলার মুসল্লিরা। এর আগে একই ময়দানে গত ১২-১৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। ইজতেমায় পবিত্র কোরআন, হাদিস ও শরিয়তের বিভিন্ন বিষয়সহ মহান আল্লাহর নৈকট্য লাভ, মহানবীর জীবনাদর্শ এবং ইসলামের মৌল বিষয় সম্পর্কে আমবয়ান করবেন আলেম-ওলামারা।

মুসল্লিরা বুধবার সকাল থেকে ইজতেমা ময়দানে এসে নিজ নিজ জেলা চিহ্নিত ২৮টি খিত্তায় অবস্থান নিতে শুরু করেন। প্রথম পর্বে অংশ নেওয়া অনেক বিদেশি মুসল্লিও দ্বিতীয় পর্বে অংশ নিচ্ছেন। ইজতেমা ময়দানসহ আশপাশের এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মাঠের সার্বিক নিরাপত্তায় প্রায় সাত হাজার পুলিশসহ র‌্যাব ও গোয়েন্দা মোতায়েন করা হয়েছে।

আকাশে র‌্যাবের হেলিকপ্টার টহল এবং তুরাগ নদে নৌ-টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বসানো হয়েছে র‌্যাব ও পুলিশের পর্যবেক্ষণ টাওয়ার ও সিসি ক্যামেরা। এ ছাড়া ইজতেমা এলাকায় গাজীপুরের পুলিশ ও জেলা প্রশাসন এবং গাজীপুর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে পৃথক কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হয়েছে। প্রাথমিক চিকিত্সার জন্য স্থাপন করা হয়েছে মেডিকেল ক্যাম্প। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে মুসল্লিদের যাতায়াতের জন্য এবারও তুরাগ নদে ৭টি ভাসমান ব্রিজ ইতিমধ্যে চালু করা হয়েছে।

১৯ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৩:০৩ পি.এম