President

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় সাত বছরের শিশু মাকসুদুল ইসলাম তুহিন হত্যা মামলায় বাবা-ছেলের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়া লাশ গুম করার অপরাধে দুজনকে তিন বছর করে সশ্রম কারাদণ্ডসহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। টাকা অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয়া হয়েছে আদেশে।

এছাড়াও প্রলোভন দেখিয়ে শিশুটিকে অপহরণ করায় ৩৬৪ (ক) ধারায় ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইন আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- আড়াইহাজার উপজেলার বগাদি কান্দাপাড়া গ্রামের বিল্লাল হোসেন এবং তার ছেলে মাহফুজুর রহমান। নিহত শিশু তুহিন বিল্লাল হোসেনের আপন ভাতিজা।

নারায়ণগঞ্জ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর এম এ রহিম জানান, আড়াইহাজার উপজেলার বগাদি কান্দাপাড়া গ্রামের কাজী নাসির উদ্দিনের ছেলে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র মাকসুদুল ইসলাম তুহিনকে গত ২০১৫ সালের ৯ মে সকালে বগাদি কান্দাপাড়া গ্রামের বাড়ির সামনে থেকে আম ভর্তা খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে আসামিরা। অপহরণের পরের দিন মোবাইলে ফোন করে তুহিনের বাবা কাজী নাসিরের কাছে ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এরপর পুলিশ মোবাইল ট্র্যাকিং করে মাহফুজকে নরসিংদী থেকে ওই বছর ১২মে গ্রেপ্তার করে।

মাহফুজ তার বাবা বিল্লাল হোসেনের ঘর থেকে নীল রঙের ড্রামের ভেতরে বন্দি তুহিনের লাশ উদ্ধার করে দেয়। ওই সময় পুলিশ বিল্লালকে গ্রেপ্তার করে। বিল্লাল নিহত তুহিনের আপন চাচা। দীর্ঘ সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালত আজ এই রায় দেন।

২৯ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৭:০৭ পি.এম