President

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে পরীক্ষার কেন্দ্রের বাইরে সামাজিক মাধ্যকে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখার চেষ্টায় পরীক্ষা দেয়া হলো না চার পরীক্ষার্থীর। এদেরকে চলমান এসএসসি পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে একজনকে।

মঙ্গলবার ভূঞাপুর পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরের মাঠে এই ঘটনা ঘটে। আজ পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষা হয়েছে।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া অন্যান্য বিষয়ের মতো এই বিষয়েরও এমসিকিউ পরীক্ষার প্রশ্ন আগেভাগেই এসেছে সামাজিক মাধ্যমে। আর বহিষ্কার হওয়া চার পরীক্ষার্থী সেগুলোই দেখার চেষ্টা করছিল।

এবার এসএসসি পরীক্ষায় এবার ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে প্রবেশে বাধ্যবাধকতা আরোপ হয়েছিল। তবে এই নির্দেশনা পালিত হচ্ছিল শিথিলভাবে। আর এ কারণে পরীক্ষার আগে আগে সামাজিক মাধ্যমে আসা প্রশ্ন যেন শিক্ষার্থীরা দেখতে না পারে, সে জন্য সময়ের বিষয়ে কঠোর হতে এবং পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে মোবাইল ফোন পেলেই গ্রেপ্তারের নির্দেশনা এসেছে রবিবার।

এই নির্দেশনার পর প্রথম পরীক্ষা হয়েছে আজই। আর ভূঞাপুরেই প্রথম ধরা পড়ার খবর পাওয়া গেল। সেখানে আটক সিজেন খান ওরফে আব্দুল কাইয়ুম উপজেলার অর্জুনা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী তবে যিনি ফোনে প্রশ্ন দেখাচ্ছিলেন তার নাম পাপ্পু। তাকে আটক করা যায়নি।

ভূঞাপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরিফ আহম্মেদ বলেন, ‘ভূঞাপুর পাইলট সরকারি বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে কয়েকজন শিক্ষার্থী হলে প্রবেশ না করে মোবাইল ফোনে প্রশ্ন দেখছিল। এমন সময় সেখানে উপস্থিত হলে প্রশ্নফাঁসের মূলহোতা পাপ্পু পালিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় চার জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।’

১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ১৫:২৬ পি.এম