President

২০০২ সালে এ শতাব্দীর প্রথম বিশ্বকাপ যৌথভাবে আয়োজিত হয়েছিল জাপান আর দক্ষিণ কোরিয়ায়। ফুটবলের বিশ্ব আসর আরও একটি যৌথ আয়োজন খুব সম্ভবত দেখতে যাচ্ছে ২০২৬ সালে। তবে দুটি নয়, তিনটি দেশ চাচ্ছে এই বিশ্বকাপের আয়োজক হতে। আগামীকাল সোমবার এ ব্যাপারে যৌথ ঘোষণা আসছে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকোর কাছ থেকে।

ইউএসএ সকারের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, সোমবার নিউইয়র্কে যুক্তরাষ্ট্র সকারের প্রধান সুনীল গুলাতি কানাডীয় ফেডারেশনের প্রধান ভিক্টর মন্টাগলিয়ানি ও মেক্সিকান ফেডারেশনের প্রধান ডেসিও ডি মারিয়াকে সঙ্গে নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেবেন। 
১৯৯৪ সালে সর্বশেষ উত্তর আমেরিকায় বিশ্বকাপ হয়েছিল। ২০২২ বিশ্বকাপ আয়োজনের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র ভীষণ আগ্রহী ছিল। করে কাতারের কাছে হেরে যায় আয়োজকের লড়াইয়ে। কিছু সংবাদমাধ্যমের ভাষ্য, ক্ষিপ্ত যুক্তরাষ্ট্র এরপরই ফিফার ভেতরের সব কেলেঙ্কারি ফাঁস করে দেয়। বেরিয়ে আসে অবিশ্বাস্য সব দুর্নীতির খবর। ফিফায় চলে টালমাটাল।
সেসব পেছনে ফেলে এবার নতুন করে আশা বুনছে যুক্তরাষ্ট্র। এবার নিজেদের দাবি আরও পোক্ত করতে দুই প্রতিবেশীকে সঙ্গে নিচ্ছে তারা। কানাডা ফুটবল বিশ্বে পিছিয়ে থাকা দেশ হলেও মেক্সিকোর আছে দীর্ঘ ঐতিহ্য। আয়োজক দেশ হিসেবেও মেক্সিকো বেশ পুরোনোই। ১৯৭০ সালে প্রথমবারের মতো তারা বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল। দ্বিতীয়বারের বিশ্বকাপ আয়োজন করে ১৯৮৬ সালে। 
গত সপ্তাহে আরুবাতে কনকাক্যাফের এক সভায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। কানাডীয় ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি মন্টাগলিনি কনকাক্যাফেরও সভাপতি। উত্তর, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবীয় অঞ্চল নিয়ে কনকাক্যাফ গঠিত।
২০২০ সালের মে মাসে ফিফা ২০২৬ বিশ্বকাপের আয়োজক চূড়ান্ত করবে। ২০২৬ বিশ্বকাপেই প্রথমবারের মতো ৪৮টি দেশ অংশ নেবে। যুক্তরাষ্ট্র তিন দেশকে নিয়ে আয়োজনের অধিকার পেলে তা হবে ফুটবল ইতিহাসে প্রথম তিন স্বাগতিকের বিশ্বকাপ। 
তবে তিন দেশের যৌথ বিশ্বকাপ আয়োজনের এই ভাবনা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে রাজনৈতিক কারণে। ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকোর মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মেক্সিকান ‘অবৈধ’ অভিবাসী ঠেকাতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সীমান্তজুড়ে দেয়াল তৈরির ঘোষণাতেই এই উত্তেজনার সূত্রপাত। সূত্র: এএফপি

০৮ এপ্রিল, ২০১৭ ২২:৩৫ পি.এম