President

কাল ম্যাচ জিতিয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নার। এর আগে জিতেছেন মনও!
খুব বড় লক্ষ্য ছিল না সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। প্রথমে ব্যাট করে গুজরাট লায়নস করতে পেরেছিল মোটে ১৩৫। এক ওয়ার্নার ঝড় তুললে এই রান কোনো ঘটনাই না। ওয়ার্নার তা করলেনও। ৪৫ বলে ৬টি চার ও ৪টি ছক্কায় করলেন ৭৬ রান। সঙ্গে ময়েজেস হেনরিকেসের ৩৯ বলে ৫২। দুজনের অপরাজিত দুই ইনিংসে আইপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা জিতল ৯ উইকেট আর ২৭ বল হাতে রেখে। কী একপেশে এক জয়।
তবে জয় ছাপিয়ে আলোচনায় ওয়ার্নারের জুতা-সৌজন্য। ৮ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন। এ সময়ের আন্তর্জাতিক তারকাদের একজন। কিন্তু ওয়ার্নার সেই আত্ম-অহম ভুলে এগিয়ে এলেন তাসিল তামপি নামের অখ্যাত এক বোলারের সাহায্যে। তামপির জুতা খুলে গিয়েছিল বল করার পর ফলো থ্রুতে। ওয়ার্নার নিজ হাতে সেই জুতা তুলে বাড়িয়ে দিয়েছেন তামপির কাছে।
এমনটা ক্রিকেট মাঠে অনেক ঘটে। তবে ওয়ার্নার যা করেছেন, সেটা বিস্ময়কর। ওয়ার্নার ছিলেন ননস্ট্রাইকিং প্রান্তে। হেনরিকেস সোজা ব্যাটে বল ঠেলে দ্রুত এক রানের জন্য দৌড় দিয়েছেন। দৌড় শুরু করেছেন ওয়ার্নারও। তামপি পাশ দিয়ে বেরিয়ে যাওয়া বলটা ঠেকানোর চেষ্টা করলেন ফলো থ্রুতে। তখনই ভারসাম্য হারিয়ে ফেললেন। ফসকে পা থেকে বেরিয়ে গেল জুতা।
কুইক সিঙ্গেল, যত দ্রুত সম্ভব নিরাপদ দাগ পেরোনোর তাড়া। কিন্তু ওয়ার্নার এরই মধ্যে দৌড়ের মাঝখানেই তামপির খুলে যাওয়া জুতো দ্রুত কুড়িয়ে বোলারের হাতে দিয়ে আবার ছুট। রানের মধ্যেই জুতো কুড়িয়ে বোলারকে দেওয়া হচ্ছে, এই দৃশ্য কে কবে দেখেছে! হায়দরাবাদ কোচ টম মুডিকে ডাগআউটে মনে হলো বিস্মিত। সহাস্য বিস্ময়!
এই সৌজন্যবোধের কারণেই টুইটারে রীতিমতো ঝড় তুলেছেন ওয়ার্নার। বেশ আলোচনা হচ্ছে ঘটনাটি নিয়ে। সূত্র: টুইটার।

১০ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:১৩ এ.ম